মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থী-শিক্ষক কেউই রাজনীতি করবেন না বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত

  • স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
  • ২০২১-০৪-২৫ ২১:০২:৫১
image

আজ রোববার (২৫/০৪২০২১) যাত্রাবাড়ীর জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদানিয়া মাদ্রাসায় আল-হাইআতুল এর স্থায়ী কমিটির এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সিদ্ধান্ত হয় কওমি মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকেরা প্রচলিত সব ধরনের রাজনীতি থেকে মুক্ত থাকবেন। উল্লেখ্য আল-হাইআতুল এর অধীনে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষা হয়ে থাকে।

সভা শেষে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আল-হাইআতুল এর ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে দেখা করে তাদের এই সিদ্ধান্তের কথা জানাবেন। এই প্রতিনিধি দলে থাকবেন মাওলানা মুফতি রুহুল আমিন, মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ আলী ও মাওলানা মুফতি জসীমুদ্দীন।

সভা থেকে কওমি মাদ্রাসার যেসব নিরীহ ছাত্র-শিক্ষক, আলেম-ওলামা, ধর্মপ্রাণ মুসলমান এবং মসজিদের ইমাম ও মুসল্লীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, রমজানের এই রহমতের মাস বিবেচনায় সরকারের কাছে তাদের মুক্তির আহ্বান জানানো হয়। নিরীহ আলেম-ওলামা, মাদ্রাসাছাত্র ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের হয়রানি না করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়।

স্থায়ী কমিটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোজার মধ্যেই হিফজ ও মক্তব বিভাগ খুলে দেওয়া ও রমজানের পর কওমি মাদ্রাসার শিক্ষা কার্যক্রম চালু করতে দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি বিশেষভাবে আবেদন জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ২৬ মার্চ ২০২১, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা আগমনকে কেন্দ্র করে স্বাধীনতাবিরোধী কতিপয় দল এবং চক্রের উস্কানিতে, হেফাজতে ইসলাম নিরীহ মাদ্রাসাছাত্রদের রাস্তায় নামিয়ে তাণ্ডবের সৃষ্টি করে। ২৬ শে মার্চের পর থেকে এই ঘটনা কয়েকদিন ধারাবাহিকভাবে চলে। দেশব্যাপী নৈরাজ্য, রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস, জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর, রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক বক্তব্য প্রদানের জন্য সরকার হেফাজতের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে যায়।

হেফাজতে ইসলামের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী এখন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তত্ত্বাবধানে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জিজ্ঞাসাবাদে রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপ এবং চক্রান্তের তথ্য একে একে বেরিয়ে আসছে। সরকার উৎখাতে বিএনপি- জামাতের সাথে ব্যাংককে হেফাজত ইসলামের নেতাদের নিয়ে গোপন বৈঠকও হয়েছে। এসমস্ত চক্রান্তের মূলোৎপাটন করে হেফাজতে ইসলামসহ সকল ধর্মান্ধ রাজনীতি বন্ধ করে দেয়ার দাবি সাধারণ মানুষের।


এ জাতীয় আরো খবর